লোক, কাজ এবং লক্ষ্য

নীতি ও পদ্ধতি- এই দুই উপায়েই আমরা সবচেয়ে বেশী শিক্ষালাভ করে থাকি। এই পাঠ্য বইয়ে লেখক বেইলি ডেভিস এই দুইটি উপায়েই নেতৃত্বের বিষয় আলোচনা করেছেন এবং ঈশ্বর মনোমত বিশেষ কয়েকজন নেতার জীবন আদর্শ থেকে আমরা পদ্ধতিগত বা উদাহরণ-মূলক উপায় লক্ষ্য করবো। ছাত্রদের জন্য বাইবেল থেকে এই সকল নেতাদের অতিপরিচিত জীবন বৃত্তান্ত নিয়ে জানতে পারবে সেই সাথে বাইবেল থেকে নতুন প্রসঙ্গ ও নেতৃত্ব সম্বন্ধে জানতে পারবে। নেতৃত্বের বিষয়কে কেন্দ্র করে বাইবেল অধ্যয়নের চমৎকার সুযোগ আপনি লাভ করবেন। এছাড়াও আপনি মানব চরিত্রের উন্নতি ও নেতৃত্বদানের সর্বশেষ মতবাদ জানতে পারবেন এবং খ্রীষ্টিয় বিশ্বাস ও নীতির সাথে কিভাবে সামঞ্জস্য পূর্ণ ভাবে ব্যবহার করতে হবে, তা বুঝতে পারবেন।

একজন ঈশ্বরীয় নেতৃত্বদানকারীর তার চারিত্রিক বৈশিষ্ট্য কেমন বা কি? এবং ঈশ্বরের পরিকল্পনা অনুযায়ী একজন নেতার অবস্থান কি? এই পাঠে আমরা বাইবেল থেকে নেতাদের খুজবো এবং জীবনের বিভিন্ন অবস্থায় কিভাবে তারা নেতৃত্ব দান করেছিলেন।

এই পাঠে আমরা মানবিক সম্পর্কের কতগুলি নীতিও আলোচনা করবো এবং আমাদের মনোভাব ভাল নেতৃত্বদানের জন্য যে গুরুত্বপূর্ণ, সেই বিষয় লক্ষ্য করবো।

এই পাঠ আমরা এমন কতগুলি শাস্ত্রীয় উদাহরণ ও শিক্ষা লক্ষ্য করবো যেগুলি আমাদের এই বিষয় বুঝতে সাহায্য করবে। এছাড়াও খ্রীষ্টিয় নেতা হিসাবে আমাদের পরিপক্কতা ও উন্নতির বিষয়ে আমরা আরো বেশী জানতে পারবো।

এই পাঠে আমরা রাজা দায়ূদের নেতৃত্ব এবং প্রয়োগবিধি বর্তমান নেতৃত্ব সম্বন্ধে কি শিখতে পারছি। আমরা আরো শিখতে পারবো। এছাড়া আমরা শিখতে পারবো কিভাবে একটি সীমারেখার মধ্যে পরিকল্পনা করা এবং নির্দিষ্ট কর্ম প্রক্রিয়া প্রস্তুত করা।

বাইবেলের যিহোশূয় অধ্যায় থেকে লক্ষ্য করা যায় কিভাবে নেতারা অন্যদের সাথে যোগাযোগ রাখত।তার উদাহরণের মধ্য দিয়ে, আমরা যোগাযোগের গুরুত্বপূর্ণ বিষয়গুলো শিখতে পারবো এবং কিভাবে একজন নেতা হিসেবে শুনতে হয় তাও শিখতে পারবো।

এই পাঠে আমরা মহান নেতা নহিমিয়ের পদ্ধতিগুলো পরীক্ষা করে দেখবো। আমরা তার কাছ থেকে ও বর্তমান কালের অন্যান্য পন্ডিতদের কাছ থেকে সমস্যার সমাধান ও সিদ্ধান্ত গ্রহণের বিষয় শিখবো।

আমাদেরকে অবশ্যই গুরুত্বপূর্ণ লক্ষ্য এবং উদ্দেশ্য এর প্রকৃতি বুঝতে ও শিখতে হবে। এরজন্য আমাদেরকে অবশ্যই তাদের সাফল্যের জন্য দায়িত্ববান হতে হবে। বাইবেল থেকে ইষ্টের সম্বন্ধে পড়লে আপনি বেশ উপকৃত হবেন এবং শিখতে পারবেন কিভাবে নেতৃত্ব সম্বন্ধে দায়িত্ববান হওয়া যায়।

এই পাঠে আমরা দেখব, একজন নেতা তার উদ্দেশ্য সমুহ কিভাবে ঠিক করেন, উপাসনার জন্য কি প্রক্রিয়া করেন সেটা আমাদের বুঝতে হবে এবং কিভাবে তার লক্ষ্য অর্জন করেন যা কিনা ঈশ্বরের আমাদের জন্য দিয়েছেন।

নেতৃত্বের চাবিকাঠি হল উৎসাহ দান; তাছাড়া নেতা এবং অনুসারী উভয়ের জন্য । আমাদেরকে বুঝতে হবে মানুষজনকে কিভাবে স্বতসূর্ফতভাবে সাহায্য করা যাতে তারা তাদের লক্ষ্যে পৌছাতে পারে যাতে তারা প্রতিষ্ঠিত হতে পারে।