খ্রীষ্টের জীবনের প্রধান প্রধান ঘটনা

 

খ্রীষ্টের জীবনের প্রধান প্রধান ঘটনা
এই কোর্সের ছয়টি পাঠে, জন্ম থেকে পুনরুত্থান পর্যন্ত খ্রীষ্টের জীবন ও তার পরিচর্যা কাজের উপর আলোকপাত করা হয়েছে।
 
দেখুন / সম্পূর্ণ কোর্স ডাউনলোড করুন
দেখুন / পাঠের ভূমিকা ডাউনলোড করুন
 
১ম পাঠ: যীশু- ঈশ্বরের মহৎ পুরস্কার
অসীম সুখ বলতে শুধু কোন কিছু ইচ্ছা করাকেই বোঝায় না। ঈশ্বর আপনাকে এত ভালবাসেন যে তিনি তার নিজের পুত্র যীশুকে আপনার বন্ধু হওয়ার জন্য পৃথিবীতে পাঠিয়েছেন। যারা তাকে গ্রহণ করে তারা অসীম সুখ লাভ করে। সুতরাং আপনার জীবনের জন্য যীশুই হল সবচেয়ে শ্রেষ্ঠ পুরস্কার।
 
দেখুন / উল্লেখিত পাঠ ডাউনলোড করুন
 
২য় পাঠ: যীশু- মহান শিক্ষক
যীশু, গালীল প্রদেশের নাসারত নামক একটি শহরে বড় হয়েছিলেন। এটি ছিল জেরুশালেম এবং তায়ীর ও সিদোন সমুদ্র বন্দরের মাঝে একটি জায়গা। এখানে অপরাধ ও দুর্নীতি এত বেশি ছিল যে লোকেরা বলত, “ নাসারত থেকে কি ভাল কিছু বের হতে পারে?” যীশু এই পাপাবস্থা দেখেছিলেন: স্বার্থপরতা, দুর্নীতি, হিংসা এবং ঈশ্বরের বিপক্ষে কথা বলা। তিনি দেখলেন যে নারী পুরুষ সবাই পাপের দাস হয়ে রয়েছে।
 
দেখুন / উল্লেখিত পাঠ ডাউনলোড করুন
 
৩য় পাঠ: যীশু- ভাববাদী এবং রাজা
মোশী একজন মহৎ ভাববাদী এবং নেতা ছিলেন। তিনি তার লোকদের দাসত্ব থেকে মুক্ত করে ঈশ্বরের আইনের মধ্যে এনেছিলেন। ঈশ্বরের মোশীকে দেখিয়েছিলেন যে, ঈশ্বরের সুসমাচার মানুষের কাছে দেয়ার জন্য মোশীহ্ একজন ভাববাদী হয়ে আসবেন। তিনি লোকদের পাপের দাসত্ব থেকে মুক্ত করবেন। তিনি তাদের জীবনের রাজা হবেন এবং তাদের জীবনের জন্য নূতন নিয়ম দেবেন।
 
দেখুন / উল্লেখিত পাঠ ডাউনলোড করুন
 
৪র্থ অধ্যায়: যীশু ক্ষমা করার বিষয়ে শিক্ষা দিয়েছেন।
কোন উত্তরাধিকার ছেড়ে দেয়ার দুইটি উপায় আছে: দলিলের মাধ্যমে বা মালিক জীবিত থাকা অবস্থায় উত্তরাধিকারীকে দেওয়ার মাধ্যমে। ছোট ছেলে তার ভাগের সম্পত্তি নিয়ে, বাড়ি থেকে দূরে কোথাও গিয়ে আনন্দ করতে চেয়েছিল। সে তার নিজের বন্ধু-বান্ধব নির্বাচন করতে চেয়েছিল। তার ইচ্ছার কথা তার বাবা বা বড় ভাইকে বলতে চায়নি। সুতরাং বাবা তার ভাগের সম্পত্তি তাকে দিয়ে দিল এবং সে বাড়ি ছেড়ে চলে গেল।
 
দেখুন / উল্লেখিত পাঠ ডাউনলোড করুন
 
৫ম অধ্যায়: যীশু আমাদের পরিবর্তে মৃত্যুবরণ করলেন।
প্রধান ধর্মীয় নেতারা যীশুকে ঘৃণা করত। কারণ যীশু তাদের পাপের বিরুদ্ধে কথা বলতেন। তারা যীশুকে ঈর্ষা করত কারণ লোকেরা যীশুকে অনুসরণ করত। তারা যীশুকে বন্দী করার পরিকল্পনা করল, তাকে দেশদ্রোহী আখ্যা দিল এবং অবশেষে মেরে ফেলার ষড়যন্ত্র করল। যাইহোক তারা তাকে প্রকাশ্যে বন্দী করতে ভয় পেয়েছিল কারণ তাতে জনগণ খেপে যাবে। তাই তারা তার এক শিষ্য, ইস্করিয়োতীয় যিহুদাকে ঘুষ দিল যেন রাতের অন্ধকারে তারা তাকে ধরতে পারে।
 
দেখুন / উল্লেখিত পাঠ ডাউনলোড করুন
 
৬ষ্ঠ পাঠ: যীশুই পুণরুত্থিত প্রভু্
ধর্মীয় নেতা নিকোদীম এবং অরিমাথিয়ার যোষেফ, যারা যীশুকে বিশ্বাস করতেন, পিলাতের কাছ থেকে যীশুর মৃত দেহ কবর দেয়ার অনুমতি নিলেন। তারা জানতেন যে তিনি মৃত, তবুও নিশ্চিত হওয়ার জন্য এক সৈন্য তার একপাশে বর্শা দিয়ে আঘাত করল। তারা মৃতদেহটি সাদা কাপড়ে জড়িয়ে কবরে শুইয়ে রাখলেন। নিকোদীমের তখন যীশুর কথা মনে পড়ল: যে ক্রুশারোপনের পর তিনি আবার “জীবিত হয়ে উঠবেন।”
 
দেখুন / উল্লেখিত পাঠ ডাউনলোড করুন